১৩৩ রানে গুটিয়ে গেল শ্রীলঙ্কা

208837 (1)

টিবিটি খেলাধুলাঃ বিশ্বকাপের প্রথম কোয়ার্টার ফাইনালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়ে শ্রীলঙ্কা ৩৭.২ ওভারে ১৩৩ রানে অলআউট হয়।

দ্বিতীয় ওভারেই কুশাল পেরেরাকে হারিয়েছে শ্রীলঙ্কা। কাইল অ্যাবোটের বলে উইকেটের পেছনে কুইনটন ডি ককের দারুণ ক্যাচে সাজঘরে ফেরেন কুশাল তিন রান করে। দলীয় চার রানে ডেইল স্টেইনের বলে প্রথম স্লিপে ফাফ ডু প্লেসিেসর তালুবন্দি হয়ে ফেরেন দিলশান। তিনি রানের খাতায় খুলতে পারেননি।

শুরুতেই দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে চাপে পড়েছে শ্রীলঙ্কা। সেখান থেকে দলের হাল ধরেন দারুণ ফর্মে থাকা কুমার সাঙ্গাকারা ও লাহিরু থিরিমান্নে। দুজনে ৬৫ রানের জুটি গড়ে বিচ্ছিন্ন হন থিরিমান্নে।

দলীয় ৬৯ রানে লেগ স্পিনার ইমরান তাহিরের বলে তার হাতেই ক্যাচ দিয়ে ফেরেন থিরিমান্নে। ৪৮ বলে ৪১ রানের ইনিংসে তিনি পাঁচটি বাউন্ডারি মারেন। আর ৮১ রানে ইমরান তাহিরের বলেই শট-মিড উইকেটে প্লেসিসের হাতে সহজ ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে মাহেলা জয়াবর্ধনে করেন ৩ রান।

এরপর একপ্রান্ত আগলে রাখা কুমার সাঙ্গাকারার সঙ্গে জুটি গড়ার আভাস দিচ্ছিলেন অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস। কিন্তু সেটিও বেশি দীর্ঘ করতে পারেনি শ্রীলঙ্কা। দলীয় ১১৪ রানে জেপি ডুমিনিটর ঘূর্ণিবলে শট-মিউ উইকেটে প্লেসিসের তালুবন্দি হয়ে সাজঘরে ফেরেন ম্যাথুস, তিনি করেন ৩২ বলে ১৯ রান।

এক রান বাদেই ইমরান তাহিরের তৃতীয় শিকারে পরিণত হন নতুন ব্যাটসম্যান থিসারা পেরেরা। রানের খাতা খোলার আগেই তিনি স্লিপে রাইলি রশোর হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন। এরপর ৩৫তম ওভারে প্রথম দুই বলে জেপি ডুমিনি নুয়ান কুলাসেকারা ও অভিষিক্ত থারিন্ডু কুশালকে ফিরিয়ে এবারের আসরের দ্বিতীয় হ্যাটট্রিক করেন।

পরের ওভারে পেসার কাইল অ্যাবোটকে আক্রমণে আনেন এবি ডি ভিলিয়ার্স। কিন্তু সাঙ্গাকারা ওই ওভারে ১১ রান নিয়ে স্ট্রাইক ধরে রাখেন। পরের ওভারে মরনে মরকেলের বলে বাউন্ডারি হাকাতে গিয়ে থার্ডম্যানে ডেভিড মিলারের তালুবন্দি হন সাঙ্গাকারা।

এর সঙ্গে থামে এই আসরে টানা চারটি শতকের রেকর্ড গড়া সাঙ্গাকারার লড়াই। তিনি ৯৬ বলে তিন চারে করেন ৪৫ রান। সাবেক এই অধিনায়কের বিদায়ের পরপরই নামে অঝোরে বৃষ্টি। খেলা আপাতত বন্ধ রয়েছে।

শেষ পর্যন্ত শ্রীলঙ্কার সংগ্রহ ৩৭.২ ওভারে ১৩৩/১০। দুশমন্ত চামেরা ২ রানে অপরাজিত থাকে।

রঙ্গনা হেরাথ ইনজুরিতে থাকায় দলে জায়গা হয়নি। গুরুত্বপূর্ণ এই ম্যাচে তার জায়গায় নেওয়া হয়েছে থারিন্ডু কুশালকে। এই স্পিনারকে ক্রিকেট লিজেন্ড মুথিয়া মুরালিধরনের কপি বলা হয়ে থাকে।

দক্ষিণ আফ্রিকা দল অপরিবর্তীত রয়েছে। গ্রুপপর্বে ‘এ’ গ্রুপ থেকে দক্ষিণ আফ্রিকা এবং ‘বি’ গ্রুপ থেকে শ্রীলঙ্কা কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠে।

 


*

*

Top