প্রচণ্ড ঝড়ে টার্মিনালসহ ভেসে গেল লঞ্চ

lonch-with-terminal

ষড়ঋতুর দেশে চলছে বৈশাখ মাস। আর বৈশাখ মানেই কালবৈশাখী ঝড়। এমনই ভয়াবহ ঝড়ের কবলে পড়েছে ঝালকাঠি জেলা। জেলাটিতে মঙ্গলবার দুই দফায় কালবৈশাখী ঝড়ে লণ্ডভণ্ড হয়েছে বিভিন্ন এলাকা। শুধু স্থানীয় জনপদই নয় প্রচণ্ড ঝড়ে টার্মিনালসহ ভেসে গেছে লঞ্চ।

প্রচণ্ড ঝগে লঞ্চঘাটের টার্মিনাল (পল্টুন) ছিঁড়ে সুন্দরবন-১২ লঞ্চসহ ভেসে গেছে সুগন্ধ্যা নদীর ওপারে। এছাড়াও গ্যাংওয়ে ও আশপাশের চারটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভেঙে নদীতে তলিয়ে গেছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছে, মঙ্গলবার দুপুর পৌনে ১টার দিকে কালবৈশাখী ঝড় শুরু হয়।

জানা গেছে, প্রচণ্ড ঝড়ে ঝালকাঠির ঘরের টিনের চালা এবং গাছপালা উপড়ে গেছে। প্রথম দফায় বাতাসে লঞ্চঘাটের পল্টুনের শিকল ছিঁড়ে যায়। এরপর সুন্দরবন-১২ লঞ্চ ও পল্টুনটি নদীতে ভেসে যায়। কালবৈশাখীর পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন ঝালকাঠির জেলা প্রশাসক হামিদুল হক।

এলাকাবাসীরা জানান, লঞ্চগুলো ভাসতে থাকলে পরে এলাকার উল্টো দিকে কিস্তাকাঠি নদীর তীঁরে টার্মিনালসহ নোঙর করা হয়। ঝড়ে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয় লঞ্চঘাট এলাকার আশেপাশের চারটি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান ও টিকিট বুকিং অফিস। দ্বিতীয় দফায় বিকাল ৩টার পর কালবৈশাখী ঝড় শুরু হলে নলছিটি ও রাজাপুর উপজেলাতে অর্ধশতাধিক গাছ উপড়ে যায়। বন্ধ হয়ে যায় বিদ্যুৎ সরবরাহ।


*

*

Top