জিম্বাবুয়েতে ঘনীভূত হচ্ছে সংকট; ফ্যাক্ট মুগাবে

Mugabe

জিম্বাবুয়ের প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবে সোমবার তার নিজ দলের পক্ষ থেকেই অভিশংসনের হুমকির মুখে পড়েছেন। রোববার টেলিভিশন ভাষণে ৯৩ বছর বয়সী মুগাবে পদত্যাগ না করার ঘোষণা দেয়ার পর তাকে অভিশংসনের হুমকির মুখে পড়তে হয়েছে।
এদিকে তার পদত্যাগ না করার ঘোষণার ফলে জিম্বাবুয়েতে টানা দ্বিতীয় সপ্তাহের জন্য রাজনৈতিক সংকট অব্যাহত থাকল। খবর এএফপি’র।
এছাড়া তার ভাষণের পর রাস্তাঘাট ও পানশালাসহ বিভিন্ন স্থানে জমায়েত জনগণ বিক্ষোভ প্রকাশ করে এবং তাদের মধ্যে অবিশ্বাস ও হতাশা জন্ম নেয়।
জিম্বাবুয়েতে চলমান রাজনৈতিক উত্তেজনা সহিংসতায় রূপ নিতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।
এর আগে গতকালই মুগাবের দল জানু-পিএফ পার্টি জরুরি বৈঠক করে দলীয় প্রধানের পদ থেকে তাকে বহিস্কার করে। সদ্য বহিষ্কৃত ভাইস প্রেসিডেন্ট এমারসন নানগাগওয়াকে তার স্থলাভিষিক্ত করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।
এক সময়ে মুগাবের একান্ত অনুগত এই দলের জরুরি বৈঠকে তাকে পদত্যাগের জন্য সোমবার পর্যন্ত সময় বেঁধে দেয়া হয়েছে।
এই সময়ের মধ্যে পদত্যাগ না করলে মুগাবেকে অভিশংসনের সম্মুখীন হতে হবে বলে দলের পক্ষ থেকে তাকে সতর্ক করে দেয়া হয়।
রোববারই জিম্বাবুয়ের সেনাপ্রধান কনস্টানতিনো চিয়েঙ্গাসহ সেনাবাহিনীর জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের সঙ্গে প্রেসিডেন্টের সরকারি বাসভবনে বৈঠক করেন মুগাবে। বৈঠকের বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানানো হয়নি।
রাজধানী হারারের রাজপথে গতকালও সেনাবাহিনীর উপস্থিতি ছিল। তাদের সমর্থনে রাস্তায় জনগণও জমায়েত হয়।
মুগাবেকে ক্ষমতা আঁকড়ে না রেখে পদত্যাগ করার জন্য তার নিজ দল, বিরোধী দল ও দেশের প্রবীণ মুক্তিযোদ্ধারা বারবার আহ্বান জানান।
৩৭ বছর ধরে ক্ষমতায় থাকা মুগাবে দুই সপ্তাহ আগে তার সম্ভাব্য উত্তরসূরি নানগাগওয়াকে বরখাস্ত করার পরই রাজনৈতিক সংকটের সূত্রপাত হয়। এক পর্যায়ে নানগাগওয়ার সমর্থনে সেনাবাহিনী ট্যাংকসহ রাস্তায় নেমে আসে। তবে তারা দেশের মুক্তিযুদ্ধের নায়ক মুগাবেকে সরাসরি উৎখাত করেনি।
দলের পক্ষ থেকে আশা করা হয়েছিল, তিনি এই ভাষণের মাধ্যমে পদত্যাগের কথা ঘোষণা করবেন। কিন্তু তাদের খুশি হতাশায় পরিণত হয়।
দেশের জনতার পাশাপাশি দলের নেতাকর্মী ও সেনা সদস্যরাও রাস্তায় নেমে ক্ষোভ প্রকাশ করে।
ভাইস প্রেসিডেন্টকে বরখাস্ত করায় মুগাবে তার স্ত্রী গ্রেসকে ক্ষমতায় বসানোর পরিকল্পনা করছেন বলে দলের পক্ষ থেকে ধারণা করা হয়। রোববারই নানগাগওয়াকে আগামী বছরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে দলের প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দেয়ারও সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।


*

*

Top