কি কারণে ভিসা বাতিল হয়?

main-qimg-fde16600c96a9ef181c5b76f089dbeb2-c

টিবিটি প্রবাস খবরঃ সাধারণত ভিসার আবেদন বাতিল হওয়ার কারণ ভিসা প্রার্থীর নিজেকে সঠিকভাবে উপস্থাপন না করতে পারা। আসলে, ভিসা পাওয়ার জন্য সবাই আবেদন করে।

যারা আবেদন করে তাদের সকল শর্ত পূরণ করেই আবেদন করতে হয়। অনেকে এখানে চালাকি করতে যায়। ধরাটা খায় তারা এখানেই। ভিসার আবেদনের সময় নিজেকে সৎ ভাবে উপস্থাপন করাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ।

আসলে, ভিসা পাওয়ার পুরো বিষয়টি নির্ভর করে দায়িত্বপ্রাপ্ত লোকদের আকর্ষণ করার উপর। তাদের যদি আপনি আপনি সন্তুষ্ট করতে পারেন তাহলে আপনি খুব সহজেই ভিসা পাবেন।

মাঝে মাঝে এমনও হতে পারে, যে আপনার ভিসা সংক্রান্ত সমস্যা থাকলেও আপনি যদি দায়িত্বপ্রাপ্ত লোকদের প্রভাবিত করতে পারেন তবে খুব সহজেই আপনি ভিসা পাবেন।

চাকরির ইন্টারভিউয়ের ওপর অনেক বই-পত্র বাজারে পাওয়া যায়। এইসব বইয়ে অনেক চমৎকার পরামর্শ দেওয়া থাকে। এগুলো নিজের ওপর ব্যবহার করতে পারেন।

তবে হ্যাঁ, ভিসার কিছু নির্দিষ্ট নীতিমালা বা রিকোয়ারমেন্টস পুরোপুরি করেই ভিসা পাওয়া যায়। আসুন নীতিমালা বা রিকোয়ারমেন্টস নিয়ে কিছু আলোচনা করি-
১. প্রথমত : ব্যবসা বা চাকরির বর্তমান অবস্থা
২. দ্বিতীয়ত : সার্বিক অর্থনৈতিক অবস্থা
৩. তৃতীয়ত : ভ্রমণের উদ্দেশ্য
৪. চতুর্থত : সামাজিক অবস্থান

ব্যবসা বা চাকরির বর্তমান অবস্থা
আপনি যখন ভিসা অ্যাপ্লিকেশন করবেন, তখন একজন ভিসা অফিসার প্রথমেই কিছু ব্যাপার এসেসমেন্ট করে থাকেন, তার মধ্যে আপনার বর্তমান অবস্থা (Current Profession) খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনার ব্যবসা অবস্থান বলতে বোঝায়, আপনার কোম্পানির আয়তন (লিমিটেড/সত্ত্বাধিকারী), কর্মচারী সংখ্যা, অ্যানুয়াল রেভিনিউ, ট্যাক্স, ভ্যাট ও রিটার্ন এবং আপডেট সব কাগজপত্র। আর চাকরির অবস্থান বলতে বোঝায়, আপনার বর্তমান কোম্পানি, চাকরির ডেজিগনেশন, মাসিক বেতন, বেতন পরিমাণ, বেতন নিয়ম মানে বেতন ইন ক্যাশ অথবা পেইড বাই অ্যাকাউন্ট, পারসোনাল ট্যাক্স ও রিটার্ন পেপার ইত্যাদি।

সার্বিক অর্থনৈতিক অবস্থা
ভিসা আবেদনের ক্ষেত্রে অর্থনৈতিক অবস্থা খুব গুরুত্ব বহন করে। আপনার ব্যাংক স্টেটমেন্ট জানাবে আপনার ব্যাংকের লেনদেন কেমন এবং এবং আপনি কতটুকু রিচ পারসন। শুধু ব্যাংক স্টেটমেন্টই নয়, এর পাশাপাশি আপনাকে আপনার অ্যাসেট, প্রপার্টি, ফ্ল্যাট, বাড়ি, গাড়ি, জমিজমার কাগজপত্রাদি সঙ্গে জমা দিতে হয়। আপনার বৈবাহিক অবস্থা ও আপনার বাচ্চা-কাচ্চা অনেক ক্ষেত্রে ভিসা পাওয়ার জন্য পজেটিভ রেজাল্ট প্রদর্শন করে থাকে, কারণ এগুলোই আপনার নিজ দেশে ফিরে আসার জন্য গ্যারান্টার হিসেবে কাজ করে থাকে।

ভ্রমণের উদ্দেশ্য
আপনি কোন উদ্দেশ্যে ভ্রমণ করবেন, এটা একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আপনার ভ্রমণের নির্দিষ্ট একটি উদ্দেশ্য থাকতে হবে এবং নির্দিষ্ট একটি সময়সীমার মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে (অধিকাংশ ক্ষেত্রে)। আমাদের দেশে অনেক ক্ষেত্রে লেটার অব পারপাস, ভিসা অ্যাপ্লিকেশনের সঙ্গে জমা দেওয়া হয় না। আপনি সব ডকুমেন্টস দিয়েই আপনার প্রত্যাশিত অ্যাম্বাসিতে ফাইল জমা দিলেন। কিন্তু ভিসা অফিসার বা ডকুমেন্ট অফিসার আপনার ভ্রমণের উদ্দেশ্য ক্লিয়ার কনসেপ্ট পেল না, সে ক্ষেত্রে ভিসা না পাওয়ারই সম্ভাবনা বেশি।

সামাজিক অবস্থান
আপনি কমিউনিটি বা লোকালিটিতে কতটা গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি তা প্রমাণ করে আপনার মেম্বারশীপ সার্টিফিকেট। আপনি কোন কোন প্রতিষ্ঠান বা সংস্থার সঙ্গে জড়িত বা আপনার কেমন ব্যক্তিত্ব তা আমরা বুঝতে পারি আপনার মেম্বারশীপ কাগজপত্রের মাধ্যমে। অনেক ক্ষেত্রে এই বিষয়গুলো আমরা গুরুত্ব দেই না কিন্তু ভিসা আবেদনের ক্ষেত্রে এগুলো গুরুত্ব বহন করে।

এসব কারণের বাইরেও অনেক কারণ থাকতে পারে। যেমন- পর্যাপ্ত তথ্যের অভাব, পজিটিভ ভেরিফিকেশন দিতে না পারা, কন্টাক্ট ইনফরমেশন ঠিক না থাকা, মিসপ্রেজেন্টেশন বা ডকুমেন্ট জালিয়াতি, ইনভাইটার মিস কন্টাক্ট, হঠাৎ কোনো ভিসার নিয়ম-কানুন পরিবর্তন ইত্যাদি।


*

*

Top